আপনারা একদিন এই মেয়েটির গান শুনতে পয়সা খরচা করবেন - ভানু

তখনকার সেই সময়ে বিভিন্ন পাড়ায় পাড়ায় জলসা হতো সংগীত শিল্পীদের। সেরকম ই এক জলসায় গ্রীন রুমে তাবড় তাবড় নামী শিল্পীরা অপেক্ষা করছেন তাদের মধ্যে রয়েছেন - শ্যামল মিত্রভানু বন্দ্যোপাধ্যায়। শ্যামল বাবু তখন মধ্যে গগনে। বিভিন্ন অনুষ্ঠানে তার গান শোনার জন্যে ভক্তরা এত পাগল হয়ে থাকতেন যে তাদের বিন্দু মাত্র তর সইতো না

ঘটনা চক্রে মঞ্চে সে সময়ে একজন পারফর্ম করছেন তরুনী এক শিল্পী। নামী শিল্পীরা ষ্টেজে ওঠার আগে যেমন স্থানীয় শিল্পীরা মঞ্চে উঠে মঞ্চের পটভূমিকাটা তৈরি করেন বা একটা আবহ তৈরি করেন সে রকম ভাবে সেই শিল্পী গান গেয়ে যাচ্ছেন। কিন্তু দর্শকেরা সেটা শুনতে যেন নারাজ। তারা চিৎকার করে যাচ্ছেন শুধু শ্যামল মিত্রের গান শোনার জন্যে। সেদিন যতগুলো গান গাওয়া ছিলো সেই শিল্পীর ততগুলো গান তিনি না গেয়ে মঞ্চ থেকে নেমে গেলেন। শ্যামল মিত্র ষ্টেজে ওঠার আগে ষ্টেজে উঠলেন ভানু বন্দ্যোপাধ্যায়

ভানু কে দেখে দর্শক তো পাগল। ভানু বাবু তার নিজের মত করে হাস্যরস পরিবেশন শুরু করলেন এবং মাঝে এটা বললেন যে, "আমি যখন কোন কথা বলি তখন কেউ সেটাকে খুব সিরিয়াসলি নেয় না। সবাই ভাবে আমি মজা করছি। সবাই আমার কথায় হাসে কিন্তু আজ আমি যে কথাটি বলছি সেটা শুনে রাখুন সেটাতে হাসবেন না। আজ আপনারা আমাদের নাম করে এই মঞ্চে আগে যে মেয়েটি গান গাচ্ছি লো তাকে যে আপনারা গাইতে দিলেন না কিন্তু ভবিষ্যতে একদিন এমন সময় আসবে যেদিন,আপনারা একদিন এই মেয়েটির গান শুনতে পয়সা খরচা করবেন, টিকিট কেটে অনুষ্ঠান দেখতে যাবেন। আপনারা আজকের এই ভবিষ্যৎ বানীটা মিলিয়ে নিবেন

বলা বাহুল্য নামী ভবিষ্যৎ বক্তাদের মতোন সেদিনের ভানু বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভবিষ্যৎ বানী মিলে গেছিলো। ভবিষ্যতে সেই শিল্পীর অনুষ্ঠান দেখতে যাবার জন্যে দর্শকেরা পয়সা খরচা করে টিকিট কাটতেন। তার গান শোনার জন্যে তার অনুষ্ঠান দেখার জন্যে। সেদিনের সেই বিখ্যাত শিল্পী এক এবং অদ্বিতীয় বনশ্রী সেনগুপ্ত

🔊 শেষ কথা - এই পোষ্ট পড়ে যদি আপনার মনে হয় এখানে দেয়া কোন তথ্য ভুল আছে তাহলে কমেন্টে জানাতে পারেন। আমি আমার ভুল সংশোধন করার চেষ্টা করবো। লিখাটি মনোযোগ দিয়ে পড়ার জন্য ধন্যবাদ আপনাকে ❤️

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

নবীনতর পূর্বতন

যোগাযোগ ফর্ম