Ki Ashay Badhi Khela Ghor (কি আশায় বাঁধি খেলাঘর) Song Lyric

Ki Ashay Bandhi khelaghar

পোষ্ট করছি এমন কিছু গানের লিরিক্স যা হয়তো বুকের ভেতর জমে থাকা অভিমানের মেঘগুলোকে ঝড়িয়ে দিলেও দিতে পারে। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের পোষ্ট মাষ্টার গল্পের একেবারে শেষ মুহুর্তের কয়েকটা লাইন বলছি। বুঝার সুবিধার জন্য সাধু ভাষাকে চলিত ভাষায় করে লিখছি -  

নতুন পোষ্ট মাষ্টার আসলো। তাকে সমস্থ চার্জ বুঝিয়ে দিয়ে, পুরনো পোষ্ট মাষ্টার উঠে পড়লো। যাবার সময়ে রতনকে ডেকে বললেন - "রতন তোকে আমি কখনো কিছু দিতে পারিনি। আজ যাবার সময়ে তোকে কিছু দিয়ে গেলাম। এতে তোর দিন কয়েক চলে যাবে"

কিছু পথ-খরচা বাদে তার বেতনের যতটাকা পেয়েছিলেন; পকেট থেকে বের করলেন। তখন রতন ধোলয় পড়ে তার পা জড়িয়ে ধরে বললো- "দাদা বাবু, তোমার দুটি পায়ে পড়ি, আমাকে কিছু দিতে হবে না। আমার জন্যে কাউকে কিছু ভাবতে হবে না" বলে এক দৌড়ে সেখান থেকে পালিয়ে গেলো। 

পোষ্ট মাষ্টার নিশ্বাস ফেলে, মোটের মাথায় নীল ও সাদা রেখায় ছবি আকা টিনের পেট্রা তুলে দিয়ে, ধীরে ধীরে নৌকার দিকে চললেন। যখন নৌকায় উঠলে- বর্ষা বিস্ফারিত নদী, পৃথিবীর উচ্ছলিত অশ্রুরাশির মত ছলছল করতে লাগলো। তখন একবার নিতান্ত ইচ্ছে হলো - ফিরে যাই, জগতের সেই কোলহারা অনাথিনীকে সঙ্গে করে নিয়ে আসি। 

কিন্তু তখন পানে বাতাস পেয়েছে। নদীর স্রোতে ভাসমান পথিকের উদাস হৃদয়ে এই তত্তের উদয় হলো - জীবনে এমন কত বিচ্ছেদ, কত মৃত্যু আছে; ফিরে ফল কি? পৃথিবীতে কে কার? কিন্তু রতনের মনে কোন তত্তের উদয় হলো না। সে, সেই পোষ্ট অফিস পারের চারদিকে কেবল চোখের জলে ভেসে ঘুরে ঘুরে বেরাচ্ছে। 

বোধ করি, তার মনে ক্ষীন আসা জেগেছিলো - দাদা বাবু, যদি ফিরে আসে? সেই বাধনে পড়ে কিছুতেই দূরে যেতে পারছিলো না। হায় বুদ্ধিহীন মানব হৃদয় ভুল কিছুতেই ঘোচে না। প্রবল প্রমাণকে অবিশ্বাস করে, মিথ্যে আশাকে দুহাতে বেধে, বুকের ভিতরে প্রানপনে জড়িয়ে ধরা যায়? 

অবশেষে একদিন সমস্থ নারি কেটে, হৃদয়ের রক্ত শুষে, সে পালায়। তখন চেতনা হয় এবং দ্বিতীয় ভ্রান্তিভাসে পড়বার জন্য চিত্ত ব্যাকুল হয়ে ওঠে

🎵 গান - কি আশায় বাঁধি খেলাঘর

🎧 Song Credits: 
🎵 গান - Ki Ashay Badhi khelaghor
🎬 অ্যালবাম -অমানুষ (১৯৭৫)
🎹 সুরকার শ্যামল মিত্র
🔊 শিল্পী কিশোর কুমার

Ki Ashay Badhi khela Ghor Song Lyric 👇

কি আশায় বাঁধি খেলাঘর, বেদনার বালুচরে (২ বার)
নিয়তি আমার ভাগ্য লয়ে যে (২ বার)
নিশিদিন খেলা করে, বেদনার বালুচরে
কি আশায় বাঁধি খেলাঘর, বেদনার বালুচরে

হায় গো হৃদয়, তবুও তোমার আশা কেন যায় না
যতটুকু চায় কিছু তার পায় না
কিছু তার পায় না
কে জানে কেন যে আমার আকাশ
মেঘে মেঘে শুধু ভরে

নিয়তি আমার ভাগ্য লয়ে যে (২ বার)
নিশিদিন খেলা করে, বেদনার বালুচরে

প্রতিদিনই ওঠে নতূন সূর্য, প্রতিদিনই আসে ভোর
ওঠে না সূর্য আসে না সকাল
জীবন আঁধারে মোর (২ বার)

পৃথিবী আমারে দিল যে ফিরায়ে, সে যেন ডাকিয়া কয়
নাহি হেথা ঠাঁই আমি তোর কেহ নই
ক্লান্ত চরণ আকুল আঁধারে
পথ শুধু খুঁজে মরে
বেদনার বালুচরে

কি আশায় বাঁধি খেলাঘর
বেদনার বালুচরে।


আরো দেখুন -
🔊 আমার মতামত - গানের কথা ও সুর অপূর্ব! এই গান টা শোনার সময় পিছনে ফেলে আসা ব্যার্থতা আর কষ্টরা কোত্থেকে যেন ছুটে চলে আসে। গানের ওপারে উত্তম এপারে কিশোর

উৎকর্ষতার শেষ সীমা। উৎকর্ষ কে, এরপরে আর টানা যায় না। কণ্ঠে কি প্যাথোস! কি স্পষ্ট উচ্চারণ তবুও কতোটা মেলোডিয়াস। চিরদিনের গান। আজও হৃদয় ছুঁয়ে যায়। উত্তম কুমারের অভিনয় ও কিশোর কুমারের কণ্ঠ অনবদ্য। কালজয়ী গান ❤️

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

নবীনতর পূর্বতন

যোগাযোগ ফর্ম